রাজ্য বার্তালোকসভা নির্বাচন

ভোট প্রচারে বিরোধীদের বিরুদ্ধে অভিষেকের হুঙ্কার

নিউজ ডেস্ক: লোকসভা নির্বাচন ঘোষণার পরে নিজের কেন্দ্রের বাইরে বেরিয়ে এই প্রথমবার দলীয় প্রার্থীর সমর্থনে প্রচার যাত্রা শুরু করলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। মথুরাপুর কেন্দ্রের তৃণমূল কংগ্রেসের প্রার্থী বাপি হালদারের সমর্থনের জনসভায় দাঁড়িয়ে তিনি একপ্রকার বিরোধীদের উৎখাত করার ডাক দিলেন।

এবারের নির্বাচনে জয়ের ব্যাবধান তিন লক্ষ্য করার চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিলেন তৃণমূল কংগ্রেসের যুবরাজ। এ দিনের সভায় অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় তৃণমূল সরকারের উন্নয়নের খতিয়ান তুলে ধরার পাশাপাশি মোদী সরকারের কড়া সমালোচনা করেন। একইসঙ্গে মোদী সররকারকে ওপেন চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিয়ে বলেন , ” বিজেপির নেতারা বলছে ক্ষমতায় এলে লক্ষী ভান্ডারের টাকা ৩০০০ করে দেবে। কিন্তু ওরা অর্ধেক করেই দিতে পারলে আমি রাজনীতি ছেড়ে দেবো। তাও না পারলে ১১০০ টাকার গ্যাস ৫ বছর ফ্রী করে দেখাক। এই মর্মে নোটিফিকেশন করলেই রাজ্যের ৪২টি আসন থেকে তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী প্রত্যাহার করবে।”

তিনি এদিন মোদীকে নিশানা করে ভাঁওতাবাজ, জুমলাবাজ বলেও তীব্র কটাক্ষ করেন। l বিজেপিকে একহাত নিয়ে বলেন, ওরা বাংলায় চারটি কেন্দ্রে তো প্রার্থী খুঁজে পাচ্ছে না। ওই সব কেন্দ্রে ইডি, সিবিআইয়ের ডাইরেক্টরদের দাঁড় করাক। বিজেপির সঙ্গে ইভি, সিবিআই থাকলেও তৃণমূলের পাশে জনগণ আছেন। তাই তৃণমূল কংগ্রেসকে হারানোর সম্ভব নয়।
এদিন তৃণমূলের সেকেন্ড ইন কমান্ড প্রধানমন্ত্রীকে নিশানা করে আরও বলেন, ” ইডি, সিবিআইয়ের উদ্ধার করা টাকা বাংলার মানুষকে ফেরৎ দেওয়ার নামে আরও বড় ভাঁওতা দিচ্ছেন। প্রধানমন্ত্রীর কথা অনুযায়ী, ইডি, সিবিআই ৩০০০ কোটি টাকা উদ্ধার করেছেন। সেই টাকা জনগনকে ফেরৎ দেওয়ার কথা বাংলার বিজেপির প্রার্থীদের বলছেন আবার তামিলনাড়ুর প্রার্থীকেও বলছেন। ভারতবর্ষের জনসংখ্যা অনুযায়ী ওই টাকা ভাগ করলে মাথা পিছু ২২ টাকা করেই ভাগে পড়ে। এটাই তো ভাঁওতাবাজি।”

এদিন তিনি দাবি করেন, বাংলার মানুষ মোদীর নয়, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের গ্যারান্টিকেই বিশ্বাস করেন। এদিনের জনসভায় মথুরাপুর কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী বাপি হালদার সহ দলের বহু ব্যাক্তি হাজির ছিলেন।

রিপোর্টার: সমীর জোয়ারদার, দক্ষিণ 24 পরগনা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *