খেলার বার্তামহানগর বার্তা

কালোবাজারিদের থেকে উদ্ধার হল ইডেনের রবিবারের ম্যাচের প্রচুর টিকিট

নিউজ ডেস্ক: সামনের রবিবার ইডেনে ভারত বনাম দক্ষিণ আফ্রিকার বিশ্বকাপের ম্যাচের টিকিটের জন্য হাহাকার চলছে শহরজুড়ে। তার মূল কারণ ম্যাচের টিকিট ঘিরে রমরমিয়ে চলছে কালোবাজারিদের দৌরাত্ম্য।

এই ঘটনায় তৎপর কলকাতা পুলিশ। সূত্রের খবর, ১ নভেম্বর থেকে এখনও পর্যন্ত মোট ১৬ জনকে টিকিট কালোবাজারির সঙ্গে যুক্ত থাকার অভিযোগে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তাদের থেকে উদ্ধার করা হয়েছে প্রচুর টিকিটও। রিপোর্ট অনুযায়ী, এখনও পর্যন্ত ৯৬টি টিকিট উদ্ধার করেছে পুলিশ। প্রতিটি ক্ষেত্রেই এই টিকিটগুলিকে চড়া দামে বিক্রি করার চেষ্টা করা হচ্ছিল। এই আবহে টিকিটগুলিকে বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। এবং দুর্ভাগ্যক্রমে, রবিবারের ম্যাচে এই ৯৬টি টিকিটের জন্য বরাদ্দ আসনগুলি ফাঁকাই থাকবে।

অপরাধ দমন শাখার যুগ্ম কমিশনার শঙ্খ শুভ্র চক্রবর্তী বলেন, বাজেয়াপ্ত হওয়া টিকিটগুলি আর বিসিসিআই-কে ফিরিয়ে দেওয়া হবে না। এই আসনগুলি ফাঁকাই থাকবে রবিবারের ম্যাচে। ধৃতদের আদালতে দোষী প্রমাণ করার ক্ষেত্রে এই টিকিটগুলি গুরুত্বপূর্ণ প্রমাণ হতে চলেছে বলে জানান তিনি। এই আবহে টিকিটগুলিকে হাতছাড়া করতে পারবে না পুলিশ। এদিকে টিকিটের কালোবাজারি রুখতে ইডেনের আশেপাশে মোতায়েন করা হয়েছে প্রায় ২৫০ পুলিশ।

এদিকে সিএবি সভাপতি স্নেহাশিস গঙ্গোপাধ্যায়কে তলব করেছে পুলিশ। যদিও সিএবি এই বিষয়টি অস্বীকার করেছে। এদিকে এদিকে কালোবাজারি ইস্যুতে কলকাতার পুলিশ কমিশনার বিনীত গোয়েল বলেন, ‘টিকিটের কালোবাজারি অভিযোগ নিয়ে আমরা তদন্ত করছি। আমরা সিএবি এবং অনলাইন সংস্থাকে নোটিশ পাঠিয়েছিলাম। আমরা তাদের কাছ থেকে বেশ কিছু তথ্য পেয়েছি। কিন্তু, আরও তথ্য সংগ্রহের প্রয়োজন রয়েছে।’

রিপোর্ট অনুযায়ী, ধৃতদের মধ্যে রয়েছেন হেমল শাহ নামক একজন ব্যক্তি।দাবি করা হচ্ছে, তিনি সিএবি সদস্য। জানা গিয়েছে, গোপন সূত্রে খবর পেয়ে গতকাল মৌলালিতে অভিযান চালিয়েছিল এন্টালি থানার পুলিশ। সেখান থেকেই গ্রেফতার করা হয়েছিল হেমল শাহকে। তাঁর সঙ্গে ছিলেন ইসমাইল হুডা নামক আরও একজন। ধৃতদের থেকে রবিবারের ইডেন ম্যাচের ১০টি টিকিটি পাওয়া গিয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *