জাতীয় বার্তাপলিটিক্সমহানগর বার্তারাজ্য বার্তা

বাংলার বাণিজ্য সম্মেলনের প্রথম দিনেই বড় বিনিয়োগের চমক আম্বানির

নিউজ ডেস্ক: ২১ নভেম্বর শুরু হয়েছে বঙ্গ বাণিজ্যিক সম্মেলন ২০২৩। প্রথম দিনেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে বড় প্রতিশ্রুতি দিলেন রিলায়েন্সের কর্ণধার মুকেশ আম্বানি। বঙ্গ বাণিজ্য সম্মেলনের প্রথম দিনই বাংলায় বড়সড় বিনিয়োগের ঘোষণা করলেন রিলায়্যান্স গোষ্ঠীর কর্ণধার মুকেশ অম্বানী।

তিনি জানিয়েছেন, আগামী তিন বছরে রাজ্য বিভিন্ন ক্ষেত্রে ২০ হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগ করবে তাঁর সংস্থা। এর পাশাপাশি এদিন একই মঞ্চে রাজ্যের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসাডর হিসাবে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের হাতে নিয়োগপত্র তুলে দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এতদিন এই দায়িত্ব ছিল বলিউড বাদশা শাহরুখ খানের উপর।

মঙ্গলবার নিউটাউনের বিশ্ব বাংলা কনভেনশন সেন্টারে সপ্তম বাণিজ্য সম্মেলনের উদ্বোধন করেন মুখ্যমন্ত্রী। তার আগে মুকেশের সঙ্গে বৈঠকও করেন তিনি। অম্বানী ছাড়াও সঞ্জীব গোয়েন্‌কা, আইটিসি চেয়ারম্যান সঞ্জীব পুরী, বেঙ্গল অম্বুজা গ্রুপের কর্ণধার হর্ষ নেওটিয়া-সহ অন্য শিল্পপতিরা তাঁদের বক্তব্যে বাংলার শিল্প সম্ভাবনার কথা তুলে ধরেন মঙ্গলবার। অন্যান্য বিনিয়োগের প্রস্তাবও এসেছে রাজ্যে।এদিন নিজের বক্তব্যে বদলে যাওয়া বাংলার কথা তুলে ধরেন মুখ্যমন্ত্রী।

বিশ্ব বঙ্গ বাণিজ্য সম্মেলনে সৌরভকে ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসাডর হিসাবে ঘোষণা করা ছিল এক প্রকার চমক। মঙ্গলবার নিজের বক্তৃতার শেষে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ”আমি এখন একটা ঘোষণা করতে চাই।” সৌরভের নাম ব্যান্ড অ্যাম্বাসাডর হিসাবে ঘোষণা করতে করতেই ডেকে নেন দাদাকে। মমতা বলেন, ”আমি না শুনতে চাই না। সব কিছুকে পজিটিভ (ইতিবাচক) দৃষ্টিভঙ্গি থেকে দেখতে হবে।” সৌরভের হাতে সঙ্গে সঙ্গেই একটি চিঠি তুলে দেন মমতা।

নবান্ন সূত্রে জানা গিয়েছে, সরকারি ভাবে নিয়োগপত্র দেবেন মুখ্যসচিব হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদী। এ-ও জানা গিয়েছে যে, সৌরভ এই দায়িত্ব পালনের জন্য রাজ্যের কোনও অর্থ নেবেন না। প্রথম বার অভিনেতা শাহরুখ খানকে রাজ্যের ‘দূত’ বানান তিনি। এ বার নিয়োগ করলেন সৌরভকে।

অন্যদিকে বাণিজ্য সম্মেলনের মঞ্চে মমতার নেতৃত্বের ভূয়সী প্রশংসা করেন মুকেশ আম্বানি। তিনি বলেন, ”মমতাদির দূরদৃষ্টি সম্পন্ন নেতৃত্বের জন্যই বাংলায় লগ্নির আদর্শ পরিবেশ তৈরি হয়েছে। এই রাজ্য এখন বিনিয়োগের গন্তব্যে পরিণত হয়েছে। আমাদের কাছেও বাংলা এখন বিনিয়োগের অন্যতম গন্তব্য।” এর পরেই তিনি ঘোষণা করেন, রিলায়্যান্স গোষ্ঠী আগামী তিন বছরে বাংলায় আরও ২০ হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগ করবে।

মুকেশের কথায়, ”ইতিমধ্যেই রাজ্যে ৪৫ হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগ করেছে রিলায়্যান্স। আগামী তিন বছরে আরও ২০ হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগ করা হবে।” কোন কোন ক্ষেত্রে হবে সেই বিনিয়োগ? রিলায়্যান্স কর্ণধার জানিয়েছেন, শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও কৃষিক্ষেত্রকে ডিজিটালি আরও উন্নত করার জন্য বিনিয়োগ করা হবে। একই সঙ্গে, টেলি যোগাযোগে জিয়োকে আরও প্রত্যন্ত অঞ্চলে পৌঁছে দিতে বদ্ধপরিকর তারা। পাশাপাশি, জৈব শক্তি উত্‍পাদনে রিলায়্যান্স যে গুরুত্ব আরোপ করেছে, সেই ক্ষেত্রেও বাংলায় বিনিয়োগ করা হবে। রিলায়্যান্স কর্তা পরিসংখ্যান দিয়ে দাবি করেন, টেলি সংযোগে কলকাতা জ়োনে ইতিমধ্যেই ৯৮ শতাংশ ব্যবহারকারীর কাছে পৌঁছে গিয়েছে জিয়ো। তা ১০০ শতাংশ করতে চায় রিলায়্যান্স।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *