রাজ্য বার্তা

আউশগ্রামে শিক্ষক দিবস পালনে অন্যন্য নজির

নিউজ ডেস্ক : আমাদের জীবনে পরম শিক্ষক বাবা ও মা। তাই শিক্ষক দিবসের দিনে বাবা ও মায়ের পা ধুইয়ে দিল আউশগ্রামের কয়রাপুর বিদ্যাসাগর বিদ্যাপীঠের ছাত্র-ছাত্রীরা। এভাবেই স্কুলে শিক্ষক দিবস পালন করা হল।

শুধু তাই নয়, স্কুলের দুই অবসর প্রাপ্ত শিক্ষকেরও পা ধুইয়ে দিলেন ওই স্কুলের দুই প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রী। তাঁরাও এখন ওই স্কুলেরই শিক্ষক ও শিক্ষিকা পদে রয়েছেন৷ জল দিয়ে পা ধুইয়ে তাঁরা প্রনাম জানান। কয়রাপুর স্কুলের প্রধান শিক্ষক সতীনাথ গোষ্বামী বলেন, এখনকার দিনে অর্থ থাকলেও শ্রদ্ধা বিষয়টা উঠে গিয়েছে। আর বাবা ও মা হচ্ছে প্রথম শিক্ষক। অথচ সেই বাবা ও মাকে যদি শ্রদ্ধা না করা হয় তাহলে আগামী দিনে ছাত্র-ছাত্রীরা কি শিখবে। সেই কারনেই আমাদের স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীরা যাতে সেই শিক্ষা পায় আমরা সেটাই চেষ্টা করেছি।

জানা গিয়েছে, আউশগ্রাম -১ ব্লকের কয়রাপুর বিদ্যাসাগর বিদ্যাপীঠ স্কুলে বর্তমানে প্রায় ৩৫০ জন ছাত্র-ছাত্রীকে ১৩ জন শিক্ষক পড়ান। এদের মধ্যে আবার তিনজন পার্শ্ব শিক্ষক হিসাবে পড়ান৷ এদিন স্কুলে শিক্ষক দিবসের আয়োজন করা হয়৷ সেখানেই পডুয়াদের অভিভাবকদের চেয়ারে বসানো হয়৷ তারপর তাঁদের পা জলে ধুইয়ে প্রনাম জানানো হয়৷

অভিভাবকদের প্রতি এমন শ্রদ্ধা নিবেদন করায় তাঁরা আপ্লুত হয়েছেন। অভিভাবকরা বলেন, ছেলে মেয়েকে স্কুলে লেখাপড়া শিখতেই পাঠাই নি৷ সেইসঙ্গে আচার আচরণ শিক্ষা নিতে পাঠিয়েছি। স্কুল আমাদের ছেলে মেয়েদের ভালো শিক্ষা দিয়েছে দেখে খুবই আনন্দিত হলাম৷

এদিন আরেক শিক্ষক বলেন, আমাদের সময়ে শিক্ষকরা রাস্তা দিয়ে কোথাও গেলে ছাত্ররা সাইকেল থেকে নেমে প্রনাম করত। এখন প্রায় দেখাই যায় না৷ তাই স্কুলে ছাত্র-ছাত্রীদের এমন শিক্ষা দিতে পেরে আমাদের খুব ভালো লাগছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *