পলিটিক্সমহানগর বার্তারাজ্য বার্তা

যাদবপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ে স্বপ্নদ্বীপের মৃত্যুর ঘটনায় দুই জেলার যুবক গ্রেফতার

নিউজ ডেস্ক: যাদবপুর কাণ্ডে পশ্চিম মেদিনীপুরের পর এবার নাম জড়ালো আরো দুই জেলার, হুগলীর আরামবাগ এবং বাঁকুড়ার। যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় স্বপ্নদ্বীপের মৃত্যুর ঘটনায় পশ্চিম মেদিনীপুরের চন্দ্রকোনার যুবক সৌরভ চৌধুরীর মতো গ্রেফতার করা হয়েছে আরামবাগের যুবক মনোতোষ ঘোষ এবং বাঁকুড়ার দ্বীপশেখর দত্তকে।

জানা গিয়েছে মনোতোষ এবং দ্বীপশেখর উভয়েই যাদবপুর ইউনিভার্সিটির দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র। স্বপ্নদ্বীপের মৃত্যুর ঘটনায় এই দুজনের নামটা জড়াল কিভাবে ? আসলে মনোতোষের গেস্ট রুমেই নাকি থাকতো স্বপ্নদ্বীপ। এবং সেই মনোতোষ এবং দ্বীপশেখর এই দুজনে মিলে মূল মাস্টারমাইন্ড সৌরভ চৌধুরীর সাথে সাথ দিয়ে স্বপ্নদ্বীপকে শারীরিক ও মানসিকভাবে হেনস্থা করতো।

পুলিশি জেরায় খোদ সৌরভ চৌধুরীর মুখ থেকেই জানা গেছে মনোতোষ এবং দ্বীপশেখরের নাম। তারপরই কালবিলম্ব না করে দুজনকে জেরা করতে শুরু করে পুলিশ। গতকাল রাতভর উভয়কে জেরা করার পর তাদের দুজনকেই গ্রেফতার করা হয়। আজ সকালে মনোতোষের গ্রেফতারির খবর পান তার বাবা মা। এবং আজই তাদেরকে যাদবপুর থানায় দেখা করার জন্য নোটিশ পাঠানো হয়। ছেলের গ্রেফতারির খবর এবং স্বপ্নদ্বীপ কাণ্ডে তার নাম জড়ানোর পর থেকে দিশেহারা হয়ে পড়েছে মনোতোষের দিন দরিদ্র অসহায় বাবা মা। এক নিমেষেই বদলে গেছে তাদের জীবন। মনোতোষের পরিবারের দাবি তাদের ছেলে নির্দোষ।

অন্যদিকে বাঁকুড়ার মাচানতলার ফেমাস গলির বাসিন্দা দ্বীপশেখর দত্তের মা বলছেন তাদের ছেলেও কোনোভাবেই এই ঘটনার সাথে যুক্ত থাকতে পারেনা। বরং তাদের ছেলে স্বপ্নদ্বীপকে সাহস জোগাতো এবং তার পাশে থাকত। তবে যদি সে জড়িত থাকে তাহলে বাবা হয়ে তিনি নিজের ছেলের শাস্তি চান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *